কুকরি-মুকরিতে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের পরিদর্শন

সোহেব চৌধুরী সোহেব চৌধুরী

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১১:৩৮ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৭, ২০২০ | আপডেট: ১১:৩৯:অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৭, ২০২০
কুকরি-মুকরিতে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের পরিদর্শন

বিচ্ছিন্ন চর কুকরি-মুকরিকে মূল ভূ-খন্ড ভোলার চরফ্যাসনের সঙ্গে ক্রসড্যাম নির্মাণের মাধ্যমে সংযুক্ত রপ্তানীযোগ্য স্বাদু পানির রিজার্ভার সৃষ্টিসহ ভূমি পুনরুদ্ধারে মেঘনা ও তেতুলিয়া নদীর মোহনা পরিদর্শণ করেছেন পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কবির বিন আনোয়ার।

বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১২টায় চরফ্যাসন উপজেলার দৃষ্টি নন্দন প্রাকৃতিক পরিবেশ মন্ডিত পর্যটন এলাকা চর-কুকরি সংলগ্ন মেঘনা ও তেতুলিয়া নদীর এ মোহনা পরিদর্শন করেন।

এসময় তিনি বলেন, বাংলাদেশ সমুদ্র সম্পদে অপার সম্ভাবনাময়। মেঘনা নদীর মোহনায় চর কুকরি-মুকরি অবস্থিত। এখানকার মনোরম পরিবেশ ও সমুদ্রের নির্মল বায়ু ,সুন্দরবনের মতো দেখতে উপকূলীয় সবুজ বেষ্টনী। যা পর্যটন স্পট হিসেবে সৌন্দর্য আরও বাড়িয়ে দিচ্ছে। তিনি আরও বলেন, ভোলার মূল ভূ-খন্ডের সাথে চর কুকরি-মুকরিকে যুক্ত এবং মোহনায় রিজার্ভার তৈরী করে স্বাদু পানি সংরক্ষণ ও রপ্তানী করা সম্ভব। এ প্রকল্পটির পর্যালচনা চলমান। আমরা খুব শীঘ্রই একটি মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করব। এ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে চর কুকরি-মুকরি দেশের অন্যতম পর্যটন স্পট হিসেবে পরিনত হবে।

এছাড়াও চরাঞ্চলবাসীর যোগাযোগ ব্যবস্থারও আমুল পরিবর্তন আসবে। পরে জেলে ট্রলারসহ আমদানী রপ্তানীতে নৌ-চলাচল ও কৃষি উন্নয়নে সেচ সুবিধার কল্পে কুকরি-মুকরির খাল সমূহ পুনঃখননে প্রস্তাবনা প্রেরণের নির্দেশ দেন।

এদিকে চরফ্যাসন উপজেলার সর্বদক্ষিণের বিচ্ছিন্ন দ্বীপ ইউনিয়ন ঢালচর এর ভাঙ্গন কবলিত স্থান ও তারুয়া সী-বীচ পরিদর্শন করেন তিনি। ঢালচর ইউনিয়নের উত্তর মাথায় সিসি ব্লক ও জিও-ব্যাগ ফেলে মেঘনার ভয়াল থাবা হয়ে রক্ষা এবং ঘুর্ণিঝড়, জলোচ্ছ্বাস হতে পরিত্রাণে ঢালচর ইউনিয়ন এর চারদিকে বেড়ীবাঁধ নির্মাণসহ দ্রুত একটি প্রকল্প প্রস্তাবনা দাখিলের জন্যেও পানি উন্নয়ন বোর্ড ভোলা-২ কে নির্দেশনা প্রদান করেন।

পরিদর্শনকালে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক এ.এম. আমিনুল হক, সাবেক অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন) মাহমুদুল ইসলাম, বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের সাবেক অতিরিক্ত মহাপরিচালক (পরিকল্পনা) মোতাহার হোসেনসহ ভোলা পানি উন্নয়ন বোর্ড-২ এর নির্বাহী প্রকৌশলী হাসান মাহমুদ, উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মোঃ মিজানুর রহমান, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আবুল হাসেম মহাজন ও সালাম হাওলাদার প্রমুখ নেতৃবৃন্দ এবং জন সাধারণ উপস্থিত ছিলেন।