‘মনপুরায় বঙ্গবন্ধুর চিন্তানিবাসের কাজ শুরু করার উদ্যোগ শীঘ্রই নেওয়া হবে’

ছালাহউদ্দিন ছালাহউদ্দিন

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ৯:৩৭ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৮, ২০২০ | আপডেট: ৯:৩৯:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৮, ২০২০
‘মনপুরায় বঙ্গবন্ধুর চিন্তানিবাসের কাজ শুরু করার উদ্যোগ শীঘ্রই নেওয়া হবে’

ভোলার বিচ্ছিন্ন দ্বীপ উপজেলা মনপুরার ইতিহাসের সাথে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অনেক স্মৃতি জড়িয়ে আছে। এখানে তিনি একটি চিন্তানিবাস করার স্বপ্ন দেখেছিলেন। সে অনুযায়ী চিন্তানিবাস করার কাজও শুরু করা হয়েছিল। কিন্তু পরবর্তীতে নানান কারনে সে কাজ আজও আলোর মুখ দেখেনি। তাই বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী এবং মনপুরার মানুষের প্রাণের দাবীর প্রতি সম্মান দেখিয়ে খুব শীঘ্রই চিন্তানিবাসের কাজ শুরু করার উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে।

বুধবার বিকেল সাড়ে ৩টায় ভোলার মনপুরায় সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি ও বিভিন্ন শ্রেণীর পেশার সাথে মতবিনিময় সভায় বিভাগীয় কমিশনার ড. অমিতাভ সরকার এসব কথা বলেন।

এর আগে উপজেলার হাজিরহাট ল্যান্ডিং স্টেশনে স্বাগতম স্তম্ভ উদ্বোধন করেন বিভাগীয় কমিশনার ও ভোলা জেলা প্রশাসক।

মতবিনিময় সভায় বক্তারা জরাজীর্ণ বেড়ীবাঁধ সংস্কার, জলদস্যু, বিদ্যুৎ ও বঙ্গবন্ধু চিন্তানিবাস কেন্দ্রিক পর্যটন কেন্দ্র স্থাপন সহ বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের দাবী করেন জনপ্রতিনিধি, মুক্তিযোদ্ধা ও স্থানীয় বিভিন্ন পেশার মানুষ।

পরে ভারপ্রাপ্ত ইউএনও সেলিম মিয়ার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি বিভাগীয় কমিশনার ড.অমিতাভ সরকার দ্বীপের সকল সমস্যা সমাধানে চেষ্টা করবেন বলে আশ্বস্ত করেন।

এই সময়ে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ভোলা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক এবং মনপুরা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও আ’লীগ সভাপতি শেলিনা আকতার চৌধুরী।

অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ কর্মচারী কল্যাণ বোর্ড বরিশাল বিভাগের পরিচালক মোঃ সোহরাব হোসেন, ভোলা সদর উপজেলা ইউএনও মিজানুর রহমান, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আকিব ওসমান, মনপুরা থানার ওসি সাখাওয়াত হোসেন, মনপুরা সরকারি ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ জাহাঙ্গীর আলম, মনোয়ারা বেগম মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ মহিউদ্দিন মিয়া, ইউপি চেয়পারম্যান শাহরিয়ার চৌধুরী দীপক, অলি উল্লাহ কাজল, আমানত উল্লা আলমগীর, স্কুলের প্রধান শিক্ষকগণ, সরকারি কর্মকর্তা, মুক্তিযোদ্ধা সহ বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষ।