চরফ্যাসনে রশি দিয়ে বেঁধে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রকে নির্যাতন

আমিনুল ইসলাম আমিনুল ইসলাম

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ৯:১৩ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৫, ২০২০ | আপডেট: ৯:১৩:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৫, ২০২০
চরফ্যাসনে রশি দিয়ে বেঁধে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রকে নির্যাতন

ভোলার চরফ্যাসনে সুপারি চুরির অভিযোগে মোঃ আল আমিন (১১) নামের পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্রকে রশি দিয়ে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

মঙ্গলবার রাত ৯ টায় উপজেলা দক্ষিণ আইচা থানাধীন নজরুল নগর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে।

উক্ত এলাকার আবু তাহের মুন্সি, হারুন বেপারি, শাহে আলম ও বাবুলসহ শিশু আল আমিনের উপর এমন নির্যাতন চালায় বলে অভিযোগ করেন আল আমিনের বাবা শামসুদ্দিন আহমেদ।

আল আমিনের বড় ভাই ইমন জানান, আমি ঘটনা স্থলে গেলে নির্যাতনকারীরা ছোট ভাই আল আমিনকে সুপারি চুরির অপবাদ দিয়ে আমার নিকট ৩০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন। ভাইকে হাত-পা বাঁধা রক্তাক্ত অবস্থায় দেখে টাকা না দিয়ে ৯৯৯ নাম্বারে কল করে দক্ষিণ আইচা থানা পুলিশের সহযোগিতায় আল আমিনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে চরফ্যাসন উপজেলা হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়।

আল আমিনের বাবা শামসুদ্দিন আহমেদ অভিযোগ করে বলেন, পূর্বের শত্রুতার জের ধরে আমার দুই ছেলেকে আবু তাহের ও হারুন তার দলবলসহ একের পর এক হামলা চালিয়ে যাচ্ছে। আমার ছোট শিশু ছেলেকে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে এভাবে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন চালিয়ে রক্তাক্ত করেছে। আমি এর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

এ প্রসঙ্গে অভিযুক্ত আবু তাহের মুন্সি জানান, আমার বিরুদ্ধে অভিযোগটি সম্পূর্ণ মিথ্যা। সুপারি চুরি করেছে বলে এলাকার লোকজন আল আমিন কে মারধর করেছে শুনেছি, কিন্তু আমি সেখানে ছিলাম না আর এ বিষয়ে কিছু জানিও না।

দক্ষিণ আইচা থানা অফিসার ইনচার্জ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ বিষয়ে আল আমিনের বাবা শামসুদ্দিন আহমেদ কয়েকজনকে অভিযুক্ত করে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।