মৎস্য ব্যবসায়ীদের মাঝে লিফলেট বিতরণ

প্রকাশিত: ৭:২৭ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৪, ২০২০ | আপডেট: ৭:২৯:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৪, ২০২০
মৎস্য ব্যবসায়ীদের মাঝে লিফলেট বিতরণ

ইলিশের উৎপাদন বাড়াতে প্রধান প্রজনন মৌসুম ১৪ অক্টোবর থেকে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত ২২ দিন সারা দেশে ইলিশ মাছ আহরণ, পরিবহন, মজুত, ক্রয়-বিক্রয় নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

মঙ্গলবার মধ্যরাত থেকে এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর শুরু হয়েছে। মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রণালয় প্রতি বছরের মতো এ বছরও ইলিশের প্রজনন নির্বিঘ্ন করতে এই পদক্ষেপ নেয়।

এদিকে আজ বুধবার ( ১৪ অক্টোবর) সকালে কোস্টগার্ডের পক্ষ থেকে জেলেদের সচেতনার করার লক্ষে ভোলার ইলিশা তালতলিসহ বিভিন্ন মাছঘাটে কোস্টগার্ড দক্ষিণ জোনের জোনাল কমান্ডার ক্যাপ্টেন এম মনঞ্জুরুল করিম চৌধুরী মৎস্যজীবি, বোট মালিক সমিতির সদস্য ও মৎস্য ব্যবসায়ীদের মাঝে লিফলেট বিতরণ করা হয়েছে।

এর মাধ্যমে জেলেদের সচেতনাতর করা হয় যাতে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে যেন কেউ মা ইলিশ ধরতে নদী না নামে। এদিকে কোস্টগার্ড ইলিশ রক্ষায় ১৬টি স্থায়ী ও লালমোহনে ১টি অস্থায়ী ষ্টেশন বরিশাল বিভাগের ৫টি জেলায় টহল কার্যক্রম শুরু করেছে।

এদিকে অভিযানের প্রথম দিনে ভোলার তজুমদ্দিনে মেঘনা নদীতে অবৈধ ভাবে মাছ শিকারের দায়ে ৭ জন জেলেকে আটক করা হয়েছে। পরে তাদের ভ্রামমান আদালতের মাধ্যমে ৫ হাজার টাকা করে জরিমানা আদায় করা হয়। প্রজনন সময়ে জেলেদেরকে ইলিশ শিকার থেকে বিরত রাখতে নিবন্ধিত ১ লাখ ২৩ হাজার জেলেকে প্রণোদনা হিসাবে ২০ কেজি করে চাল বিতরণসহ ব্যাপক কর্মসূচী গ্রহণ করেছে মৎস্য বিভাগ।

কোস্টগার্ড দক্ষিণ জোনের জোনাল কমান্ডার ক্যাপ্টেন এম মনজুর-উল- করিম চৌধুরী বলেন, রাত থেকে মা ইলিশ ধরা সংরক্ষনণ কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

এ সময় মাছ ধরা, বিক্রি করা মজুদ করা, বিপণন সহ সকল কার্যক্রম বন্ধ আছে। কোস্ট গার্ড নিয়মিত অভিযানের সাথে সাথে আমাদের এই অভিযান সফল করতে সকল কার্যক্রম বৃদ্ধি করা হয়েছে। এর মাধ্যমে মা ইলিশ আমরা সংরক্ষণ করতে পারবো। যে সব এলাকায় ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা আছে সেসব এলাকায় টহল কার্যক্রম জোরদার করা হবে।