আন্তর্জাতিক তথ্য অধিকার দিবস উপলক্ষে চরফ্যাসনে আলোচনা সভা

আমিনুল ইসলাম আমিনুল ইসলাম

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ৬:২২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২০ | আপডেট: ৬:৩১:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২০
আন্তর্জাতিক তথ্য অধিকার দিবস উপলক্ষে চরফ্যাসনে আলোচনা সভা

আন্তর্জাতিক তথ্য অধিকার দিবস উপলক্ষে “সংকটকালে তথ্য পেলে জনগণের মুক্তি মেলে” এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ভোলার চরফ্যাসনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

চরফ্যাসন উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টায় উপজেলা প্রশাসনিক ভবন হলরুমে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহি অফিসার মোঃ রুহুল আমিন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীন আখন, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রিপন বিশ্বাস, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক মিয়া, কুকরি-মুকরি ইউপি চেয়ারম্যান ও চরফ্যাসন প্রেসক্লাবের সভাপতি অধ্যক্ষ আবুল হাসেম মহাজন, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান এবং উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন কর্মকর্তারা-কর্মচারীগণ উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জয়নাল আবেদীন আখন বলেন, তথ্য প্রাপ্তি ও জানা মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার। তথ্য মানুষকে সচেতন করে এবং সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে সহায়তা করে। তথ্যের অবাধ প্রবাহ ও দেশের জনগণের তথ্য অধিকার নিশ্চিতি করণের জন্যই প্রণীত হয়েছে তথ্য অধিকার আইন, ২০০৯। এ আইনের ফলে সরকারি, স্বায়ত্বশাসিত ও সংবিধিবদ্ধ এবং সরকারি ও বিদেশি অর্থায়নে সৃষ্ট বা পরিচালিত বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের স্বচ্ছতা, জবাবদিহির পাশাপাশি দুর্নীতিমুক্ত পরিবেশে দায়িত্ব পালন ও সুশাসন প্রতিষ্ঠার পথরচিত হয়েছে।

বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় আবুল হাসেম মহাজন বলেন, শেখ হাসিনা সরকার, সরকারি টেলিভিশনের পাশাপাশি ৪৫টি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল, ২৮টি এফএম বেতার কেন্দ্র এবং ৩২টি কমিউনিটি রেডিও সম্প্রচারের অনুমতি দিয়েছি। এছাড়াও জুম অ্যাপসের মাধ্যমে সরাসরি জনগণের তথ্যে অবাধ প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করার প্রয়াসে সিটি কর্পোরেশন, পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদের ৬৬৮৬টি ডিজিটাল সেন্টার স্থাপন করেছেন।

অনুষ্ঠানের সভাপতি উপজেলা নির্বাহি অফিসার মোঃ রুহুল আমিন বলেন, বর্তমান সরকার তথ্যের অবাধ প্রবাহকে বিস্তৃত করতে ১৯৯৬-২০০১ মেয়াদে প্রথম দেশে বেসরকারি স্যাটেলাইট টেলিভিশন চালুর অনুমোদন দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ সফলতার সঙ্গে কার্যক্রম পরিচালনা করছে। আমরা আশা করি, তথ্য অধিকার আইনের আওতায় সুবিধাদি ব্যবহারের মাধ্যমে জনগণের ক্ষমতায়ন ও সন্তুষ্টি নিশ্চিত হবে।