বোরহানউদ্দিনে সুমন হত্যার ঘটনায় দোষীদের ফাঁসির দাবীতে মানববন্ধন

প্রকাশিত: ১:৫৭ অপরাহ্ণ, জুন ২৪, ২০২০ | আপডেট: ১:৫৭:অপরাহ্ণ, জুন ২৪, ২০২০
বোরহানউদ্দিনে সুমন হত্যার ঘটনায় দোষীদের ফাঁসির দাবীতে মানববন্ধন

ভোলার বোরহানউদ্দিন সরকারি আব্দুল জব্বার কলেজের মেধাবী ছাত্র সুমন হত্যার ঘটনায় গ্রেফতারকৃত ঘাতক মিঠু মঙ্গলবার ভোলা আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। গ্রেফতারকৃত অপর আসামি মিঠুর ছোট ভাই রাসেদের ৩দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন বিজ্ঞ আদালত। এসকল তথ্য নিশ্চিত করেন মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা।

এদিকে ময়না তদন্ত শেষে নিহত সুমনের লাশ পরিবারের নিকট হস্তান্তর করলে ২৩ জুন, মঙ্গলবার বিকালে বোরহানগঞ্জ
জ্ঞাণদা বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

জানাযা শেষে এলাকাবাসি ও নিহত সুমনের সহপাঠীরা বোরহানগঞ্জ বাজারে ঘাতকদের দ্রুত ফাঁর্সির দাবিতে মানববন্ধন করেন। এ মানববন্ধনে পক্ষিয়া ৭নং ওয়ার্ডে সাবেক ইউপি সদস্য হোসেন মেম্বার সহ স্থানীয়রা উপস্থিত ছিলেন।

এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই স্বপন কুমার হাওলাদার জানান, ঘটনায় নিহতের মা মমতার বেগম ৩ জনকে নামীয় এবং ৩/৪ জনকে অজ্ঞাত করে সোমবার রাতেই একটি মামলা দায়ের করেন। গ্রেফতারকৃত আসামী মিঠু আদালতে দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি প্রদান করেন। অপর আসামি মিঠুর ভাই রাসেলকে ৭দিনের রিমান্ড আবেদন করলে আদালত তাকে ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এব্যাপারে বোরহানউদ্দিন থানার অফিসার ইনচার্জ মু.এনামুল হক জানান, মুক্তিপণের জন্যই মূলত এ মর্মান্তিক হত্যাকান্ড । গ্রেফতারকৃত মিঠু বিঞ্জ আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি প্রদান করেন। অপর আসামি রাসেদের ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, সোমবার (২২ জুন) দুপুরে সুমনকে ডেকে নিয়ে যাবার দুইদিন পর মাটি খুঁড়ে তাঁর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। উপজেলার পক্ষিয়া ইউনিয়নের আট নাম্বার ওয়ার্ডের মোশারেফ মোল্লার সুপারী বাগান থেকে তাঁর মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। ওই সময় ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. বশির গাজী ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (লালমোহন সার্কেল) মো. রাসেলুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

সুমন ওই এলাকার সৌদি আরব প্রবাসী মফিজুল ইসলামের ছেলে। সে উপজেলার সরকারি আবদুল জব্বার কলেজের ডিগ্রী তৃতীয় বর্ষের ছাত্র। গ্রেফতার হওয়া মিঠু পক্ষিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নাজিমউদ্দিনে ছেলে। সে স্থানীয় বোরহানগঞ্জ বাজারে ওয়ার্কশপের দোকান করে।