অর্ধশত আলেমদের উপস্থিতিতে এমপি শাওনের বাবার জন্য দোয়া মোনাজাত

হাসান পিন্টু হাসান পিন্টু

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ৩:২০ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৪, ২০১৯ | আপডেট: ৩:২০:অপরাহ্ণ, জুলাই ১৪, ২০১৯
অর্ধশত আলেমদের উপস্থিতিতে এমপি শাওনের বাবার জন্য দোয়া মোনাজাত

ভোলা-৩ আসনের এমপি ও রিহ্যাবের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট, কেন্দ্রীয় যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য নূরুন্নবী চৌধুরী শাওনের বাবা শিক্ষানুরাগী নুরুল ইসলাম চৌধুরীর রুহের মাগফিরাত কামনায় ভোলা জেলার অর্ধশত আলেম ও সর্বস্তরের মানুষদের উপস্থিতিতে দোয়া মোনাজাতের আয়োজন করা হয়েছে।

রোববার আসরবাদ এমপি শাওনের বাসভবনে মরহুমের পরিবার বর্গের আয়োজনে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এসময় ভোলা জেলার বিভিন্ন উপজেলাসহ লালমোহন-তজুমদ্দিন উপজেলার সর্বস্তরের মানুষ, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, উপজেলা ও ইউপি চেয়ারম্যানবৃন্দ, সরকারি কর্মকর্তাগণ এবং বিভিন্ন মাদ্রাসার এতিম শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

দোয়া মোনাজাত অনুষ্ঠানে ভোলা-৩ (লালমোহন-তজুমদ্দিন) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব নূরুন্নবী চৌধুরী শাওন বলেন, আমার বাবা মরহুম নূরুল ইসলাম চৌধুরী কখনো নামাজ কাজা করতে দেখিনি। সে সব সময় সাধারণ জীবনযাপন করতেন। আমার আলীশান বাড়ীতে এক দিনের জন্যও তাঁকে রাখতে পারিনি। মধুবাগে বাবার নিজ হাতে করা তিনতলা জরাজীর্ণ বাড়ীতেই তিনি থাকতেন। উপস্থিত মুসল্লিদের কাছে বাবা মরহুম নূরুল ইসলাম চৌধুরীর জন্য দোয়া চান এমপি নূরুন্নবী চৌধুরী শাওন।

এসময় আলেম ওলামারা তাদের বক্তব্যে বলেন, মরহুম নুরুল ইসলাম চৌধুরী ছিলেন একজন সমাজ সচেতন, ধর্মানুরাগী ব্যক্তি। তিনি কখনো নামাজ কাজা করতেন না। মরহুম নূরুল ইসলাম চৌধুরী আলেম না হলেও তার ব্যবহার ছিল আলেমদের মতোই। তাঁর জানাযা প্রমাণ করে তিনি নিতান্তই ভালো মানুষ ছিলেন। সেদিন ভোলা জেলার গুরুত্বপূর্ণ আলেমরা নূরুল ইসলাম চৌধুরীর জানাযায় উপস্থিত ছিলেন। নূরুল ইসলাম চৌধুরী সম্পর্কে জানতে হলে তাঁর ছেলে সংসদ সদস্য নূরুন্নবী চৌধুরীকে অনুসরণ করতে হবে। কারণ নূরুন্নবী চৌধুরী শাওন বাবার সবকিছুই পেয়েছেন। এমপি সাহেবও আলেমদেরকে যথাযথ সম্মান করেন। সমাজসেবায় তিনি ছিলেন নিবেদিন প্রাণ। দোয়া মোনাজাতে মরহুমের রুহরে মাগফিরাত কামনা করা হয়।

এছাড়া দুপুরে লালমোহন হা-মীম রেসিঃ একাডেমীর আয়োজনে বালুরচর হালিমিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানা, বদরপুর নূরুন্নবী চৌধুরী মহা বিদ্যালয়, গজারিয়া বালিকা দাখিল মাদ্রাসায় মরহুম নুরুল ইসলাম চৌধুরীর রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া মোনাজাতে অংশ গ্রহণ করেন এমপি শাওন। পরে তিনি সেখানে এতিমদের নিয়ে খাবার খান।

এ সময় লালমোহন উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ গিয়াস উদ্দিন আহমেদ, পৌর মেয়র এমদাদুল ইসলাম তুহিন, জেলা পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার হাবিবুল হাসান রুমি, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাসেলুর রহমান, উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক দিদারুল ইসলাম অরুণ, পৌরসভা আওয়ামীলীগের সভাপতি ফখরুল আলম হাওলাদার, সাধারণ সম্পাদক সফিকুল ইসলাম বাদল, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোশারেফ হোসেন সোহেল প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

এমপি শাওনের পিতা নুরুল ইসলাম চৌধুরী বুধবার ভোর ৪টায় ঢাকা ইউনাইটেড হাসপাতালে ইন্তেকাল করেণ। বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় ঢাকা মগবাজার মধুবাগ স্কুল মাঠে প্রথম নামাজের জানাযা এবং সাড়ে ১০টায় বায়তুল মোকাররমে দ্বিতীয় নামাজের জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। পরে লালমোহনের উদ্দেশ্যে নিয়ে আসা হলে শুক্রবার জুমাবাদ তৃতীয় জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হয়।