বিদায় বেলায় আগুন ঝরিয়ে গেলেন ওয়াহাব, বড় জয় ঢাকার

প্রকাশিত: ১০:০৩ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ৩১, ২০১৯ | আপডেট: ১০:০৩:পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ৩১, ২০১৯
বিদায় বেলায় আগুন ঝরিয়ে গেলেন ওয়াহাব, বড় জয় ঢাকার

দেশে ফিরে যাবেন। ঢাকা প্লাটুনকে এবারের আসরের মতো বলবেন বিদায়। সব কিছু ঠিক। এমন সময়ে এসে শেষবেলায় ঢাকার সমর্থকদের যেন আফসোস বাড়িয়ে গেলেন ওয়াহাব রিয়াজ। মিরপুরে আজ (সোমবার) বল হাতে রীতিমত আগুন ঝরালেন পাকিস্তানি এই পেসার।

নামের পাশে তখন ৪ উইকেট, অথচ খরচ করেননি এক রানও! ওয়াহাব রিয়াজের প্রথম ৯টি বল যেন আগুনের গোলা দেখছিলেন রাজশাহী রয়্যালসের ব্যাটসম্যানরা। কার্যত পাকিস্তানি পেসারের ওই ৯ বলেই ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়ে আন্দ্রে রাসেলের দল।

পরে আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি, হেরেছে বড় ব্যবধানে। মিরপুরে রাজশাহী রয়্যালসকে ৭৪ রানে হারিয়ে শেষ চারের দৌড়ে ভালোভাবেই শামিল হয়েছে মাশরাফি বিন মর্তুজার ঢাকা প্লাটুন।

অথচ ১৭৫ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে আফিফ হোসেন ধ্রুব আর লিটন দাসের ব্যাটে উড়ন্ত সূচনা পেয়েছিল রাজশাহী। প্রথম ৩ ওভারে ৩৯ রান তুলেন এই যুগল। কে জানতো, পরে এমন দুঃস্বপ্ন অপেক্ষা করছে!

চতুর্থ ওভারে বল হাতে নিয়েই ম্যাচ ঘুরিয়ে দেন ওয়াহাব। ওই ওভারে তিনি তুলে নেন লিটন দাস (১০), অলক কাপালি (০) আর শোয়েব মালিককে (০)। সেই ধাক্কা পরে আর কাটিয়ে ওঠতে পারেনি রাজশাহী। ওপেনিংয়ে নেমে আফিফের করা ২৩ বলে ৩১ রানই দলের পক্ষে সর্বোচ্চ। ১৬.৪ ওভারে রাজশাহী অলআউট হয়েছে ১০০ রানে।

দুর্দান্ত বোলিং করা ওয়াহাব রিয়াজ ৩.৪ ওভার বল করে মাত্র ৮ রান খরচায় নিয়েছেন ৫টি উইকেট। একটি করে উইকেট নেন হাসান মাহমুদ, লুইস রিজ আর শাদাব খান।

এর আগে তামিম ইকবাল আর আসিফ আলির ঝড়ো হাফসেঞ্চুরিতে ভর করে ৫ উইকেটে ১৭৪ রানের লড়াকু সংগ্রহ দাঁড় করায় ঢাকা প্লাটুন। অথচ টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা তেমন ভালো ছিল না তাদের। পাওয়ার প্লের প্রথম ৬ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে মোটে ৩৬ রান তুলতে পারে মাশরাফির দল। এনামুল হক বিজয় ১০ আর লুইস রিস আউট হন ৯ রান করে।

চার নম্বরে নেমে ঝড় তুলতে চেয়েছিলেন মেহেদী হাসান। ১১ বলে ১ চার আর ২ ছক্কায় ২১ রান করে তিনি শিকার হন রবি বোপারার। এরপর ফরহাদ রেজার করা ১৩তম ওভারে ফিরে যান আরিফুল হক (৭) আর মাশরাফি (০)। ঢাকা তখন বিপদে।

সেই বিপদ থেকে দলকে উদ্ধার করেন তামিম আর আসিফ। ষষ্ঠ উইকেটে তারা অবিচ্ছিন্ন থাকেন ৯০ রানে। তামিম শুরুতে একটু ধীরগতিতে খেললেও শেষদিকে ঝড় তুলেছেন। ৫২ বলে ৪ বাউন্ডারি আর ৩ ছক্কায় তামিম খেলেন হার না মানা ৬৮ রানের ইনিংস। ২৮ বলে ৪টি করে চার ছক্কায় ৫৫ করেন আসিফ।

রাজশাহীর বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে সফল ফরহাদ রেজা। তবে প্রথম ওভারে ২ উইকেট নিয়ে পরে বেদম মার খেয়েছেন এই অলরাউন্ডার। ৩ ওভারে দিয়েছেন ৪৪ রান।