‘তারকা নয় অভিনয়শিল্পী বলুন’

প্রকাশিত: ১১:৩৮ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৬, ২০১৯ | আপডেট: ১১:৩৮:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৬, ২০১৯
‘তারকা নয় অভিনয়শিল্পী বলুন’

সিনেমার প্রযোজক,পরিচালক ও নায়ক ইলিয়াস কাঞ্চনকে  অপমানের প্রতিবাদে গতকাল এফডিসির সামনে মানববন্ধন করলে চলচ্চিত্রকর্মীদের ১৮টি সংগঠন।  মানব বন্ধন শেষে কথা হয় শিল্পী সমিতির সভাপতি ও অভিনেতা মিশা সওদাগরের সঙ্গে।  এ সময় শিল্পী সমিতি যে কোন পরিস্থিতিতে ইলিয়াস কাঞ্চনের পাশে আছেন বলে জানান তিনি।

মিশা সওদাগর বলেন, সড়ক পরিবহন আইন পাশ হলে সে আইন তো কাঞ্চন সাহেব বাড়ি নিয়ে যাবেন না। বরং এটা সবার মঙ্গল হবে। সবার জীবনের নিরাপত্তার জন্যই এ আইন। এমন না এ আইন পাশ হলে শুধু ইলিয়াস কাঞ্চনের একার লাভ বা শুধু চলচ্চিত্রের মানুষের লাভ হবে। এটা সাধারণ মানুষের লাভ। তাই এ আইন বাস্তবায়নের পক্ষে কাঞ্চন সাহেবের সঙ্গে আমরা শিল্পী সমিতি আছি।

এ ছাড়া সরকার কোন আইন পাশ করলে সেটা জনগণের উপকারের জন্যই পাশ করেন বলেও মন্তব্য করেন মিশা সওদাগর।

সরকার সড়ক পরিহবনের যে আইন পাশ করেছেন।  তার যথার্থ বাস্তবাযন চান সমিতির এ নেতা। না হলে আগামীতে ইলিয়াস কাঞ্চনের সঙ্গে তার সমর্থনে পর্যায়ক্রমে মাঠ পর্যায়ে আন্দোলনে নামবেন বলেও জানান মিশা সওদাগর।

সোমবারের মানবন্ধনে  জায়েদ খান, ইমন, অঞ্জনা, আলেকজান্ডার ছাড়া চোখে পড়ার মতো তারকা ছিলেন না। তারকাশিল্পীদের উপস্থিতি কম কেন জানতে চাইলে মিশা সওদাগর তারকাখ্যাতিতে বিশ্বাসী নয় জানিয়ে বলেন, আমি গ্ল্যামারে নই, গ্রামারে বিশ্বাসী একজন মানুষ। আমি তারকায় নই, ব্যক্তিত্বে বিশ্বাসী। নূর হোসেন কোনো তারকা ছিলেন না, একজন সাধারণ মানুষ ছিলেন। তার বিরুদ্ধে কথা বলে একজন রাজনৈতিক মানুষ ক্ষমা চেয়েছেন। আমি মনে করি, দায়িত্ববান হওয়াই সবচেয়ে বড় তারকা। তাই শিল্পীদের কাউকে তারকা বলতে চাইনা। অভিনেতা-অভিনেত্রী বলতে চাই। তারকা বলে বলে অনেককেই বায়াস করে ফেলেছি। ধ্বংসের মুখে চলে গেছে চলচ্চিত্র। সেজন্য এফডিসি শূন্য হয়ে গেছে। শুধু আমি নই, তারকা মূল্যায়নে অন্যদেরও সচেতন হওয়া উচিত।  আপনারাও তারকা না বলে অভিনয়শিল্পী বলুন।