ট্রেন দুর্ঘটনায় ১৬ জন নিহতের ঘটনায় অপমৃত্যুর মামলা

প্রকাশিত: ৮:৪৯ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৩, ২০১৯ | আপডেট: ৮:৪৯:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৩, ২০১৯
ট্রেন দুর্ঘটনায় ১৬ জন নিহতের ঘটনায় অপমৃত্যুর মামলা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার মন্দবাগ রেলওয়ে স্টেশনে দুই ট্রেনের সংঘর্ষে ১৬ জন নিহত হওয়ার ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

মঙ্গলবার রাতে স্টেশন মাস্টার জাকের হোসেন বাদী হয়ে জিআরপি থানায় এ মামলা করেন।

আখাউড়া জিআরপি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল কান্তি দাশ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সোমবার রাত পৌনে ৩টার দিকে চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী তূর্ণা নিশীথা আর সিলেট থেকে ছেড়ে আসা চট্টগ্রামগামী উদয়ন এক্সপ্রেস ট্রেনের সংঘর্ষে কয়েকটি বগি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এতে ১৬ জন নিহত ও শতাধিক আহত হয়েছেন। এ দুর্ঘটনার জন্য প্রাথমিকভাবে চালককে দায়ী করা হচ্ছে।

নিহত ১৫ জনের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। নাম-পরিচয়হীন এক নারীর লাশ কুমিল্লায় হাসপাতালের মর্গে রয়েছে। আহতদের ঢাকা, কুমিল্লা, সিলেটসহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। হতাহতের প্রায় সবাই উদয়ন এক্সপ্রেসের যাত্রী।

হতাহতের ঘটনায় শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় রেল চালকদের দক্ষতা বৃদ্ধির ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী।

হতাহতের ঘটনায় শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় রেল চালকদের দক্ষতা বৃদ্ধির ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী।

দুর্ঘটনার পর প্রাথমিকভাবে তুর্ণা নীশিথার চালক, সহকারী চালককে বরখাস্ত করা হয়েছে। এছাড়া ৫টি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ে ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে। কমিটি আগামী ৩ দিনের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট জমা দিবে বলে তিনি নিশ্চিত করেছেন রেলপথ মন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন।

এদিকে দুর্ঘটনায় নিহত ১৬ জনের পরিবারকে রেলওয়ের পক্ষ থেকে জনপ্রতি ১ লাখ টাকা ও আহতদের ১০ হাজার টাকার ক্ষতিপূরণসহ প্রতিটি লাশ দাফনে ২৫ হাজার টাকা এবং আহতদের চিকিৎসার পুরো ব্যয়ভার বহনের কথা জানান মন্ত্রী।