মনপুরায় ডাচ্ বাংলা ব্যাংকিং এজেন্টকে গলা কেটে হত্যা, আটক ৪

ছালাহউদ্দিন ছালাহউদ্দিন

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ৯:৪৭ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৭, ২০১৯ | আপডেট: ৯:৫১:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৭, ২০১৯
মনপুরায় ডাচ্ বাংলা ব্যাংকিং এজেন্টকে গলা কেটে হত্যা, আটক ৪

ভোলার মনপুরায় ডাচ্ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং এজেন্টকে নিজ বাড়ির উঠানে গলা কেটে হত্যা করেছে দূর্বৃত্তরা। এই ঘটনায় ওই এজেন্টের দোকান থেকে এক কর্মচারী দিবাকরকে সহ আরোও ৩ জনকে ঢাকাগামী লঞ্চ ফারহান-৩ থেকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ হেফাজতে রয়েছে বলে জানান ওসি।

সোমবার রাত সাড়ে ১২ টায় উপজেলার হাজিরহাট ইউনিয়নের ফকিরহাট বাজার থেকে বাড়ি ফেরার পর ওই এজেন্টের নিজ বাড়ির সামনের উঠানে এই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে।

তবে টাকার জন্য এই হত্যাকান্ডটি ঘটতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারনা করছেন পুলিশ। এছাড়াও থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

নিহত ডাচ্ বাংলা মোবাইল ব্যাংকের এজেন্ট ও ব্যবসায়ী হলেন, উপজেলার হাজিরহাট ইউনিয়নের চরফৈজুদ্দিন গ্রামের বাসিন্দা মোঃ মজিবুল হক মোল্লার বড় ছেলে মোঃ আলাউদ্দিন মোল্লা। সে চার সন্তানের জনক।

আটককৃত ৪ সন্দেহভাজন হলেন, নিহত ওই এজেন্টের কর্মচারী হাজিরহাট ইউনিয়নের চরফৈজুদ্দিন গ্রামের বাসিন্দা দিবাকর, অপর তিন জন হলেন, মোঃ শামীম (২০), মোঃ শাহীন (১৮) ও মোঃ মাকছুদ (১৮)। এদের সবার বাড়ি তজুমুদ্দিন উপজেলার চাঁদপুর ইউনিয়নের হাজিকান্দি গ্রামে।

এদিকে চাঞ্চল্যকর এই হত্যাকান্ডের বিচারদাবী করে থানার সামনে হাজার হাজার মানুষ জড়ো হন। এছাড়াও এই ঘটনাটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে সবাই হতবাক হয়ে যান।

প্রতিবেশী আমিনুল ইসলাম শামীম জানান, সোমবার রাতে এজেন্ট ও ব্যবসায়ী আলাউদ্দিন গলায় হাত ধরে আমার বাড়িতে দৌড়ে আসে। প্রথমে আমি ভয় পেয়ে যাই। তার সারা শরীরের রক্তমাখা ছিল। একপর্যায়ে আমি ডাকচিৎকার শুরু করলে স্থানীয়রা ঘর থেকে বের হয়ে আসে। পরে মোটরসাইকেলযোগে মনপুরা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন।
মনপুরা সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাঃ মশিউর রহমান জানান, গলাকাটা ব্যক্তিটিকে হাসপাতালে আসার আগেই মৃত্যু হয়।

মনপুরা থানার ওসি ফোরকান আলী জানান, সন্দেহভাজন ৪ জনকে আটক করে পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্ত করার জন্য ভোলায় প্রেরণ করা হয়েছে। এছাড়াও অধিকতর তদন্তে মনপুরা আসছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ মিজানুর রহমান। এই ঘটনায় থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।