চরম দূর্ভোগে চরমাদ্রাজ এলাকাবাসি

সোহেব চৌধুরী সোহেব চৌধুরী

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১০:৪২ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৩০, ২০১৯ | আপডেট: ১০:৪২:অপরাহ্ণ, আগস্ট ৩০, ২০১৯
চরম দূর্ভোগে চরমাদ্রাজ এলাকাবাসি

চরফ্যাসন উপজেলার চরমাদ্রাজ ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের নাজিমুদ্দিন গ্রামের প্রায় ৮ কিলোমিটার দীর্ঘ সড়কটির বেহাল দশা। বর্ষার শুরু থেকেই কাদাঁপানিতে একাকার হয়ে যায়। এমন নাজুক অবস্থায় মাদ্রাজ নাজিমুদ্দিনের প্রায় ১৫ হাজার জনসাধারণের চরফ্যাসন সদরে আসা-যাওয়ায় চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে বলে জানান এলাকাবাসি।

কাঁচা সড়কটিতে সামান্য বৃষ্টিতেই মাটি নরম হয়ে যায় ফলে যানবাহনসহ মানুষের চলাচলে অনিচ্ছা সত্বেও বাধ্য হয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। স্কুল কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরাসহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষের একমাত্র ভরসা এ সড়কটি।

ছাত্র-ছাত্রীরা বলেন, স্কুল মাদ্রাসায় যেতে আমাদেও খুব কষ্ট হচ্ছে। অসুস্থ রোগীদের সদর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যেতেও পোহাতে হচ্ছে চরম দূর্ভোগ। চরফ্যাসন থানা রোডের পূর্বে অলি দফাদার সড়ক থেকে দক্ষিণে ২ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করেই জামান সড়কটি গিয়ে মিশেছে মেঘনা পাড়ের বেঁড়িবাধের ঢালে।

চরফ্যাসনের পত্রিকা ব্যাবসায়ি মোঃ কবির বলেন, আমরা ব্যাবসার কাজে চরফ্যাসন সদরে আসতে এবং কাজ শেষে বাড়ি যেতে খুবি কষ্ট হয় সাইকেল নিয়ে যেতে পারিনা। এলাকাবাসীর দাবি চরফ্যাসন ও মনপুরার গণমানুষের জননেতা আবদুল্লাহ আল ইসলাম এমপি মহদয় যেন এ সড়কটি পাকা করার জন্য শুদৃষ্টি দেন।

এবিষয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যান মোজাম্মেল জমাদার মুঠোফোনে বলেন, সড়কটি আমি পরিদর্শন করেছি। ঐ কাচাঁ সড়কটির বিষয়ে কর্র্তৃপক্ষের সাথে আলাপ আলোচনা করে দ্রæত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এলজিইডি’র চরফ্যাসন উপজেলা প্রকৌশলী রেজাউল করিম বলেন, সড়কটি নির্মাণের জন্য অফিসিয়াল কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।