বোরহানউদ্দিনে দুই মেম্বার প্রার্থী’র মধ্যে সংঘর্ষ আহত ২০

প্রকাশিত: ১০:১০ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৩, ২০২১ | আপডেট: ১০:১০:অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৩, ২০২১
বোরহানউদ্দিনে দুই মেম্বার প্রার্থী’র মধ্যে সংঘর্ষ আহত ২০

ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার দেউলা ইউনিয়নে ৮নং ওয়ার্ডে মেম্বার প্রার্থী ইসমাইল হোসেন ভুট্রু তালুকদার পানির কল প্রতিক ও জাফর আহমেদ তালুকদার মোরগ প্রতিক এর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় গ্রুপের ২০ জন কর্মী সমর্থক আহত হয়। রবিবার রাত অনুমান সাড়ে ৮টায় দেউলা ৮নং ওয়ার্ড পশ্চিম গ্রামের মাঝি বাড়ীর দরজায় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

আবু জাফর তালুকদারের আহতরা হলেন, আবু জাফর তালুকদার (৪২), মো. তানজিল (২০), সোহেল (২৫), বাছেদ তালুকদার (৪০), হাসান তালুকদার (৪০), হারুন মাঝি (৪২), রমিজউদ্দিন (৫৫)। ভুট্রু তালুকদারের আহতরা হলেন, আ: খালেক (৩৫), এছান (১৬), আবু মাঝি (৪৫), মো. রুবেল (২৫), ইমাম হোসেন বাগা (৫৫), আবুল বাগা (৬৮), কয়ছর আহমেদ (৬৫), মনসুর (৩৮)। এদিকে জানা যায়, এ দুই মেম্বার প্রার্থী একই বাড়ীর লোকজন তাদের দুই প্রার্থীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে ওই ঘটনাকে ব্যক্তিগত সুবিধা পাওয়া জন্য এখন বলছে এটা চেয়ারম্যান প্রার্থীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে।

দেউলা ইউনিয়নের নৌকা প্রতিকের শাহজাদা তালুকদার জানান, আমার প্রতিপক্ষ স্বতন্ত্র প্রার্থী আসাদুজ্জামান বাবুলের নেতৃত্বে বিএনপি’র কিছু ক্যাডার বাহিনী সহ আমার সমর্থকদের উপর হামলা করে ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি আবু জাফর তালুকদার সহ ১০ জন কর্মী সমর্থক কে কুপিয়ে জখম করেছে। এদের অবস্থা খারাপ হওয়ায় বোরহানউদ্দিন হাসপাতাল হতে ভোলা সদর হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসি। ভোটের পরিবেশকে অশান্ত করতে তিনি এলাকায় একের পর এক হামলা করছে। আমি প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

দেউলা ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতিক আসাদুজ্জামান বাবুল জানান, নৌকা প্রতিকের প্রার্থী শাহজাদা তালুকাদারের লোকজন আমার কর্মী সমর্থকদের উপর অব্যাহত হামলা করছে। এর আগে আমার উপর হামলা করে আমার পা ভেঙ্গে দিয়েছে। আমি এখনও চিকিৎসা নিচ্ছি। রবিবার রাতে দুই মেম্বার প্রার্থীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ওই ঘটনাটি ভিন্নখাতে নেয়ার জন্য আমাকে দায়ী করে বিভিন্ন অপপ্রচার করছেন। তিনি আরোও জানান, আমি এলাকা গণসংযোগ করতে গেলেই আমার কর্মী সমর্থকদের উপর হামলা হয়। আমি শান্তিপূর্ণ ভাবে নির্বাচন করার পরিবেশ চাই।

মেম্বার প্রাথী ইসমাইল হোসেন ভুট্রু তালুকদার পানির কল প্রতিক বলেন, আমার ১০/১২ জন নেতাকর্মীকে পিটিয়ে আহত করেছে। তারা এখনও লালমোহন হাসপাতাল সহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে।