চরফ্যাসনে ট্রলার ডুবি: ১ জেলে উদ্ধার, নিখোঁজ ২১

প্রকাশিত: ৬:৩৯ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৬, ২০২১ | আপডেট: ৬:৩৯:অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৬, ২০২১
চরফ্যাসনে ট্রলার ডুবি: ১ জেলে উদ্ধার, নিখোঁজ ২১

ভোলার চরফ্যাসনে সাগরে ট্রলার ডুবির ঘটনায় নিখোঁজ ২২ জেলের মধ্যে ১ জেলেকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত জেলের নাম হাফেজ খন্দকার (৩২)। তাকে বরগুনার জেলার পাথরঘাটা থেকে ওইখানকার স্থানীয় জেলেরা উদ্ধার করেন। তবে ২১ জেলের এখনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। প্রাথমিকভাবে এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন, চর মানিকা জোনের কোষ্টগার্ড কন্টিনজেন্ট কমান্ডার হারুন অর রশিদ। সোমবার বিকাল ৫টায় এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত ওই ট্রলারের ২১ জেলে ও ট্রলার নিখোঁজ রয়েছে।

সোমবার মধ্যরাতে সাগরে আবদুল্লাহপুর ইউনিয়নের কামাল খন্দকারের মালিকানাধীন “মা শামসুননাহার” নামের মাছ ধরার ট্রলারটি ডুবে যাওয়ার ঘটনা ঘটে। নিখোঁজ জেলেদের বাড়ি চরফ্যাসন উপজেলার আবদুল্লাহপুর ইউনিয়নের শিবা ও আহম্মদপুর গ্রামে।

প্রত্যক্ষদর্শী জেলেদের বরাত দিয়ে ট্রলার মালিক কামাল খন্দকার মুঠোফোনে জানান, ‘গত শনিবার বাচ্চু মাঝিসহ ২১ জেলে ঢালীর হাট মংসঘাট থেকে ইলিশ শিকারে সাগরে যায়। ঘূর্ণীঝড় জাওয়াদের কারনে বৈরি আবহাওয়ায় সাগরে টিকতে না পেরে জেলেরা বাড়িতে রওয়ানা হয়। ফেরার আগে রোববার রাতে বাচ্চু মাঝির সাথে আমার কথা হয়। সোমবার দুপুরে অন্য মাঝিদের কাছ থেকে খবর পাই যে, পেছন থেকে একটি মালবাহি জাহাজ আমার মাছ ধরার ট্রলারটিতে ধাক্কা দিলে মুহুর্তে ট্রলারটি মাঝিমাল্লাসহ ডুবে যায়। ট্রলারে থাকা জেলেরা জীবিত আছে কি-না এখনও নিশ্চিত বলতে পারছিনা।’

এদিকে ট্রলার মালিক কামাল খন্দকার দুপুরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়েছেন।

চর মানিকা জোনের কোষ্টগার্ড কন্টিনজেন্ট কমান্ডার হারুন অর রশিদ জানান, ‘মেঘনায় ট্রলার ডুবির ঘটনার খবর পেয়েছি। দূর্ঘটনাস্থলের অবস্থান নিশ্চিত করে উদ্ধার অভিযানে যাওয়া হবে। আমরা ট্রলার মালিক কামাল খন্দকার এর সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।’