হাফ ভাড়া নিয়ে তর্কে কলেজছাত্রীকে ‘ধর্ষণের হুমকি’র প্রতিবাদে বিক্ষোভ

প্রকাশিত: ১২:৪৮ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২১, ২০২১ | আপডেট: ১২:৪৮:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২১, ২০২১
হাফ ভাড়া নিয়ে তর্কে কলেজছাত্রীকে ‘ধর্ষণের হুমকি’র প্রতিবাদে বিক্ষোভ

রাজধানীর বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজের এক শিক্ষার্থীকে বাসের হেলপার প্রকাশ্যে ধর্ষণের হুমকি দেয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ করছেন কলেজটির শিক্ষার্থীরা।

হাফ ভাড়া নিয়ে তর্কের এক পর্যায়ে ‘ঠিকানা এক্সপ্রেস লিমিটেড’র একটি বাসের হেলপার ওই শিক্ষার্থীকে এই হুমকি দেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

রবিবার চাঙ্খারপুল এলাকায় কলেজের সামনের সড়কটি অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন শিক্ষার্থীরা।

সকাল ৯টার দিকে তারা সড়ক বন্ধ করে দেয়ার পর কলেজ প্রশাসন শিক্ষার্থীদের ভেতরে নিয়ে তালাবন্ধ করে দেয়। এরপর ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা তালা ভেঙে পুনরায় সড়ক অবরোধ করে।

চকবাজার থানার ওসি মো. আব্দুল কাইয়ুম জানান, ছাত্রী হেনস্তার বিষয়ে কোনো অভিযোগ পাননি। তবে খোঁজ নিয়ে দেখছেন।

অভিযোগকারী ওই শিক্ষার্থী জানান, আমার বাসা শনিরআখড়ায়। সকাল ৮টার দিকে ক্যাম্পাসে রওনা হই ‘ঠিকানা’ পরিবহনের একটি বাসে। যাত্রাবাড়ী ফ্লাইওভার পার হওয়ার পর হেলপার (২৫) আমার কাছে ভাড়া চাইলে ২০ টাকার নোট দিই। বাকি ১০ টাকা ফেরত চাইলে আমাকে ৫ টাকা ফেরত দেয়। স্টুডেন্ট বলায় তিনি আরও ক্ষেপে যান। একপর্যায়ে গালাগাল শুরু করে।

তিনি আরও জানান, বাকি টাকা ফেরত চাইলে গাড়ির গতি কমিয়ে আমাকে নেমে যেতে বলেন চালক, হেলপার ও তার এক সহযোগী। প্রতিবাদ করলে বলে, ‘দিমু না কি করবি কর’ এরপর আমি উচ্চ গলায় (চিল্লানোর) পর সে বলে ‘গলা বড় করবি না ৫ টাকা নে নাহয় নাইমা যা’।

এ সময় বাসের আরও কয়েকজন যাত্রীর সঙ্গেও একই ব্যবহার করেন ওই বাসটির হেলপার। অনেক যাত্রী প্রতিবাদ করলেও পরে গালাগালির ভয়ে তারা থেমে যান।

ওই শিক্ষার্থী জানান, আমি একাধিকবার টাকা চেয়েছি। ফেরত দেয়নি। কিছু সময় পর কলেজের কিছুটা দূরে আমাকে নামতে বাধ্য করেন। এরপর নামার সময় ৫ টাকা ফেরত দিয়ে ধর্ষণসহ শারীরিক হেনস্তার হুমকি দিয়ে ভাষায় প্রকাশযোগ্য নয় এমন মন্তব্য করেন।

বাসটি চলমান থাকায় তিনি প্রতিবাদ করতে পারেননি এবং ওই বাসের নম্বরও নোট করার সুযোগ পাননি।

বদরুন্নেসা সরকারি কলেজের আরেক শিক্ষার্থী জানায়, প্রতিদিন বাসের এমন ভোগান্তিতে পোহাতে হয় আমাদের। স্টুডেন্ট দেখলে আগে বাসে তুললেও এখন তুলতে চায় না। তুললেও ভাড়া বেশি দিতে হয়। আমরা যদি এখন কিছু না বলি সামনে আরও প্রবলেম এ পড়তে হবে।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, প্রতিদিন অনেক শিক্ষার্থী বাসে চলাচল করলেও তাদের থেকে হাফ ভাড়া নেওয়া হচ্ছে না। উল্টো বাসচালক ও হেলপাররা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন।