বোরহানউদ্দিনে যৌতুকের দাবীতে স্ত্রীকে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ

প্রকাশিত: ৬:৪৯ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৬, ২০২১ | আপডেট: ৬:৪৯:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৬, ২০২১
বোরহানউদ্দিনে যৌতুকের দাবীতে স্ত্রীকে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ

ভোলা বোরহানউদ্দিন উপজেলার বড় মানিকা ইউনিয়নের দক্ষিন বাটামারা গ্রামে যৌতুকের দাবীতে তিন সন্তানের জননী জেসমিন আক্তার নামে এক গৃহবধুকে নির্যাতনের মাধ্যমে আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

আহত জেসমিন (৩০) বেগমের ভাই মো: বিল্লাল হোসেন অভিযোগ করেন তার বোন জেসমিন বেগমের সাথে বড় মানিকা ৮নং ওয়ার্ডের বাসিন্ধা জাহাঙ্গীর এর সাথে ১৫ বছর পূর্বে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে হয়। তাদের সংসারে ৩টি ছেলে সন্তান আছে। কিন্তু আমার ভগ্নিপতি জাহাঙ্গীর বিয়ের পর থেকেই কাজ কর্ম কমিয়ে অলস জীবন যাপনে অভ্যস্থ হয়ে পড়ে এবং আমার বোনকে বিভিন্ন সময় যৌতুকের জন্য মারধর করা শুরু করে আমরা বোনের সুখের কথা চিন্তা করে বিভিন্ন সময় এনজিও ও বিভিন্ন লগ্নি মহাজন থেকে চড়া সুদে তার দাবী মতো টাকা দিতে থাকি এত সে আরো বেপরোয়া হয়ে লোভ বৃদ্ধি পেতে থাকে ও বোনের উপর নির্যাতনে মাত্রা বেড়ে তোলে।

বিষয়টি নিয়ে এলাকার গন্যমান্য জনপ্রতিনিধিগণ সালিশ বিচার করে তাকে সাবধান করে দিলেও সে তোযাক্কা না করে বোনকে হুমকি ধামকি দিতে থাকে। আজ ঘটার সময় বেলা ৩টায় বোনকে যৌতুকে দাবীকৃত ৫০ হাজার টাকার জন্য গালিগালাজ শুরু করে বোন টাকা না দেওয়ার অসহায়ত্ব প্রকাশ করলে তাকে লাঠি দিয়ে পিটাতে থাকে এবং রক্তাক্ত করে, বোনের চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এসে তাকে নির্বৃত্ত করে আমার বোনকে উদ্ধার করে বোরহানউদ্দিন হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে। আমরা খবর শুনে এসে জানতে পারি এলাকার লোকজন তাকে উদ্ধার না করলে প্রানে মেরে ফেলার ঝুঁকি ছিল। এ ব্যাপারে আমরা মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছি এবং প্রশাসনের কাছে সুষ্ঠু বিচারের দাবী জানাচ্ছি।

এ ব্যাপারে ভিকটিমের অভিযুক্ত স্বামী মো: জাহাঙ্গীরের কাছে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ঘটনার সত্যতা জানতে চাইলে তিনি বলেন, মেরেছি তবে কেনো মেরেছি। আমার বড় ছেলে কে জিজ্ঞাসা করে দেখুন।