বোরহানউদ্দিনে দলবেঁধে ধর্ষণের ঘটনায় আটক ১

প্রকাশিত: ৯:১৪ অপরাহ্ণ, জুন ১৫, ২০২১ | আপডেট: ৯:১৭:অপরাহ্ণ, জুন ১৫, ২০২১
বোরহানউদ্দিনে দলবেঁধে ধর্ষণের ঘটনায় আটক ১

ভোলার বোরহানউদ্দিনে গৃহবধূকে দলবেঁধে ধর্ষণের ঘটনায় সোমবার রাতে মো. শাহেদ (২৪) নামের এক যুবককে আটক করেছে থানা পুলিশ।

এ তথ্য নিশ্চিত করেন বোরহানউদ্দিন থানার ওসি মো. মাজহারুল আমিন। আটককৃত শাহেদ উপজেলার পৌর ৫নং ওয়ার্ডের মো. বাচ্চু তালুকদারের ছেলে।

ভিকটিমের পরিবার সূত্রে জানা যায়, বোরহানউদ্দিন পৌর সভার ৪ নং ওয়ার্ডের স্মৃতিপাড়া এলাকায় ৩ সন্তাানের জননী রবিবার বিকালে স্থানীয় একটি এনজিও (পরিবার উন্নয়ন সংস্থা) থেকে ৫০ হাজার টাকার ঋণ নেয়ার জন্য ১০ হাজার টাকা সঞ্চয় সাথে নিয়ে যান।

পরে এনজিওর অফিস বন্ধ থাকায় বাড়ি ফেরার পথে এক আত্মীয়র বাসায় যান। সেখান থেকে রাতে বাড়ি ফেরার পথে স্থানীয় বখাটে ফারুকের ছেলে সুমন (৩০), বাচ্চু তালুকদারের ছেলে শাহেদ (২৫), বাদশা মিয়ার ছেলে মামুন (২৫) ও ইউসুফ (৫০) জোর করে মুখে চাপে স্থানীয় একটি বাগানের নির্জন ঘরে নিয়ে যায়।

এক পর্যায়ে কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই বখাটেরা ওই গৃহবধূর হাত-মুখ চেপে ধরে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এসময় চেঁচামেচি ও ধস্তাধস্তিতে স্থানীয়রা টের পেয়ে এগিয়ে গেলে ধর্ষকরা দৌড়ে পালিয়ে যায়। এসময় তার কাছ থেকে নগদ ১০ হাজার টাকা, মোবাইল ফোন, স্বর্নের চেইন, বালা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা গৃহবধূকে প্রথমে বোরহানউদ্দিন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ পরে ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করারন। সে এখন ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা সেবা নিচ্ছে।

এদিকে এ ঘটনায় বোরহানউদ্দিন থানায় একটি গণধর্ষণ মামলা দায়ের করা হয়। যার নং ০৯ তারিখ ১৪-০৬-২০২১ ইং। এ অভিযোগের ভিত্তিতে থানা পুলিশ সোমবার রাতে প্রধান আসামী মো. শাহেদ কে গ্রেফতার করে ভোলা কোর্টে প্রেরণ করেন।

বোরহানউদ্দিন থানার ওসি মোহাম্মদ মাজহারুল আমিন জানান, এ ঘটনার প্রধান আসামীকে গ্রেফতার করে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরন করা হয়েছে। আসামীকে পুলিশ হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ০৭ (সাত) দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে। এখনও আদেশ পাইনি। বাকী আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।