পুড়ে ছাই ‘কয়েক হাজার ঘর’: সড়কের পাশে অবস্থান রোহিঙ্গাদের

প্রকাশিত: ১১:০৮ অপরাহ্ণ, মার্চ ২২, ২০২১ | আপডেট: ১১:০৮:অপরাহ্ণ, মার্চ ২২, ২০২১
পুড়ে ছাই ‘কয়েক হাজার ঘর’: সড়কের পাশে অবস্থান রোহিঙ্গাদের

কক্সবাজারের উখিয়ার বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে প্রায় কয়েক হাজার ঘর পুড়ে ছাই হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। অগ্নিকাণ্ডের পর রোহিঙ্গারা ঘরবাড়ি ছেড়ে কক্সবাজার টেকনাফ সড়কের দুই পাশে অবস্থান নিয়েছেন। তবে হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

উখিয়া থানার ওসি আহমেদ সন্জুর মোরশেদ বলেন, রাত ১০টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। তবে হতাহতের জানা যায়নি।

চার ঘণ্টাব্যাপী আগ্নিকাণ্ডে কক্সবাজার টেকনাফ সড়কের যান চলাচল বন্ধ ছিল। ফায়ার সার্ভিসের সাত ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। অগ্নিকাণ্ডের পর পুরো ক্যাম্প এলাকায় নিরাপত্তা জোরদারে সেনাবাহিনী, বিজিবি, পুলিশ ও আমর্ড ব্যাটলিয়ন মোতায়ন করা হয়েছে।

কক্সবাজার জেলা প্রশাসক, জেলা পুলিশ সুপার, শরণার্থী ও ত্রাণ প্রত্যাবাসন কমিশনার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

সোমবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে উখিয়ার বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্প ৮ ডব্লিউ-তে আগুনের সূত্রপাত হয়। তবে কীভাবে আগুন লেগেছে তা কেউ বলতে পারেনি।

পরে বালুখালী ক্যাম্প ৮ই, বালুখালী ক্যাম্প ৯ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। অগ্নিকাণ্ড থেকে রোহিঙ্গাদের প্রাণ ভয়ে দিকবিদিক ছোটাছুটি করতে দেখা যায়। অনেক রোহিঙ্গা নর-নারী সহায়-সম্বল হারিয়ে এখন নিঃস্ব হয়ে পড়েছেন বলে জানান। কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কের উখিয়ার বালুখালী পান বাজার থেকে থাইংখালী পর্যন্ত রাস্তার উভয় পাশে তারা আশ্রয় নিয়েছেন।

উখিয়ার বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ইনচার্জ মোহাম্মদ তানজীম বলেন, ফায়ার সার্ভিসের উখিয়া স্টেশন, রামু স্টেশন ও কক্সবাজার স্টেশনের সাতটি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করে।

উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কর্মরত এনজিও কর্মী সাইফুল ইসলাম বলেন, শুরুতে এই আগুন ৮ নম্বর ক্যাম্পে লাগলেও ধীরে ধীরে তা ৯, ১০, ১১ নম্বর ক্যাম্পে ছড়িয়ে পড়েছে। চারদিকে এক ধরনের আতংক বিরাজ করছে। অবস্থা খুব খারাপ।

সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশিদ ঘটনাস্থলে পৌঁছান। তবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মো. সামছুদ্দৌজা বলেন, উখিয়ার বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে দুপুরে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে। এখন পর্যন্ত কী পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তা জানা যায়নি।