সারাদেশে নিশ্চিত হয়েছে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের নিরাপত্তা, হাইকোর্টে প্রতিবেদন

প্রকাশিত: ৭:৫২ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১২, ২০২১ | আপডেট: ৭:৫২:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১২, ২০২১
সারাদেশে নিশ্চিত হয়েছে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের নিরাপত্তা, হাইকোর্টে প্রতিবেদন

সারাদেশে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের এক হাজার ২০১টি ভাস্কর্য ও ম্যুরাল নির্মাণ করা হয়েছে। আর ১৯টি এখনো নির্মাণাধীন রয়েছে। এসব ম্যুরাল ও ভাস্কর্যের নিরাপত্তাও নিশ্চিত করা হয়েছে। মন্ত্রী পরিষদ বিভাগ, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং পুলিশ মহাপরিদর্শকের পক্ষে হাইকোর্টে দাখিল করা প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি শাহেদ নুর উদ্দিন সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে মঙ্গলবার এই প্রতিবেদন দাখিল করা হয়। পরে এ বিষয়ে শুনানির জন্য বৃহস্পতিবার শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে। আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এবিএম আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বঙ্গবন্ধুর যত ম্যুরাল ও ভাস্কর্য ছিল তার নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। সেখানে সিসি ক্যামেরা স্থাপন, গোয়েন্দা বাহিনী নিয়োগসহ আইন শৃঙখলা বাহিনীর নিয়মিত টহলের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

এর আগে গত ৭ ডিসেম্বর মুর্তি ও ভাস্কর্য নিয়ে ধর্মভিত্তিক কয়েকটি সংগঠনের বিতর্কের মধ্যে দেশের সেসব জেলা-উপজেলায় বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল স্থাপন করা হয়েছে, তার পর্যাপ্ত নিরাপত্তা নিশ্চিতে পদক্ষেপ গ্রহণের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। মন্ত্রী পরিষদ সচিবকে এ নির্দেশ দেওয়া হয়। পাশাপাশি রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানসহ অন্যান্য স্থানে নির্মাণাধীন ম্যুরালের নিরাপত্তায় পদক্ষেপ নিতেও নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী ড. বশির আহমেদ। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এবিএম আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার।

২০১৭ সালের ২০ নভেম্বর এক রিটের শুনানি নিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কর্তৃক একাত্তরের ৭ মার্চ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ঐতিহাসিক ভাষণের স্থানে মঞ্চ পুননির্মাণসহ কয়েকটি বিষয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট। পরে ওই রিটের ধারাবাহিকতায় সম্পূরক আবেদনে হাইকোর্ট সংশ্লিষ্টদের প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।