তজুমদ্দিনে বন্ধের দিনেও সেবা পাচ্ছে পশুর মালিকরা

প্রকাশিত: ৭:৫৩ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৯, ২০২১ | আপডেট: ৭:৫৩:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৯, ২০২১
তজুমদ্দিনে বন্ধের দিনেও সেবা পাচ্ছে পশুর মালিকরা

ভোলার তজুমদ্দিনে বন্ধের দিন শুক্রবার ও শনিবারও পশুর চিকিৎসাসেবা পাচ্ছে মালিক পক্ষ। প্রাণিসম্পদ দপ্তরের ভেটেনিরানি সার্জন ডা. মোঃ সাইফুল আজম ইতিমধ্যে কর্তব্যপরায়নতার জন্য বেশ জনপ্রিয় ও আলোচিত হয়ে উঠেছেন উপজেলা ব্যাপী।

প্রাণিসেবা মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে তিনি দিনরাত নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছে । সরকারী এই দপ্তরের বিভিন্ন সেবা সাধারণ মানুষকে সঠিকভাবে পৌছে দিচ্ছেন তিনি।

সরেজমিনে ৯ জানুয়ারী শনিবার সকাল ১০টায় প্রাণি সম্পদ হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, সকলের জন্য নিরাপদ, পর্যাপ্ত ও মানসম্মত পাণিজ আমিষ নিশ্চিতকরণ এবং পাণি সম্পদের উন্নয়ন। পাণিস্বাস্থ্য সেবা প্রদান, প্রাণির উৎপাদন ও উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি এবং মূল্য সংযোজনের মাধ্যমে প্রাণিজ আমিষের চাহিদা পূরণের লক্ষে সরকারী বন্ধের দিনেও পশুর চিকিৎসা দিচ্ছেন উপজেলা প্রাণি সম্পদ হাসপাতালের ভেটেরিনারি সার্জন ডা. সাইফুল ইসলাম। তজুমদ্দিন উপজেলার মানুষ দারিদ্র কবলিত বিধায় ভেটেরিনারি সার্জন নিরলসভাবে চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছেন।

প্রতিবেদকের কথা হয় শনিবারে পশুর চিকিৎসা নিতে আসা ইব্রাহিম, রিয়াজ, নুরুল হক, জরিনা আঃ মান্নান ও শিরিনা সাথে তারা বলেন, সরকারী বন্ধের দিনেও সাইফুল স্যার আমাদের পশু পাখির চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছে তাতে আমরা অনেক খুশি। সাইফুল স্যার মহামারি করোনার মধ্যেও আমরা যখনিই সমস্যা নিয়ে এসেছি তখনই স্যার তার সাধ্যমত আমাদের সেবা দিয়েছেন।

ভেটেরিনারি সার্জন ডা. সাইফুল ইসলাম বলেন, এই উপজেলার পশুর মালিকরা হাসপাতালমুখী হওয়ায় বন্ধের দিনেও কিছু জরুরী রোগাক্রান্ত পশু নিয়ে মানুষ হাসপাতালে আসেন, যদি আমরা চিকিৎসাসেবা না দেই তাহলে ভূল মানুষের কাছে গিয়ে ভূল চিকিৎসা নিয়ে মালিক পক্ষ ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে। সেই চিন্তা থেকে আমরা প্রাণি সম্পদ দপ্তরে বন্ধের দিনেও পশুর চিকিৎসা দিয়ে যাচ্ছি।

উল্লেখ, ডা. সাইফুল আজম ৩৭তম বিসিএস থেকে নিয়োগ পেয়ে ভেটেরিনারি সার্জন হিসেবে তজুমদ্দিন প্রাণি সম্পদ হাসপাতালে যোগদান করেন সরকারী চাকুরী জীবন শুরু করেন।